জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের মৃ’ত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ

প্রধানমন্ত্রী বল্লেন ‘‘আমি ছিলাম স্যারের শিক্ষার্থী’’

মে ১৫ ২০২০, ০৭:২০

Spread the love

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের মৃ’ত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার এক শোকবার্তায় নিজের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের অনন্য অবদানের কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্ম’রণ করেন প্রধানমন্ত্রী। শোকবার্তায় ড. আনিসুজ্জামানকে অ’ত্যন্ত শ্রদ্ধাভরে স্ম’রণ করে অনেক স্মৃ’তিচারণ করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমি ছিলাম স্যারের টিউটোরিয়াল গ্রুপের শিক্ষার্থী।’ প্রধানমন্ত্রী এসময় শিক্ষা ক্ষেত্রে অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের অনন্য অবদানের কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্ম’রণ করেন। তিনি আরও বলেন, তার মতো বিদ’গ্ধ ও জ্ঞানী মানুষের মৃ’ত্যুতে দেশের এক অ’পূরণীয় ক্ষতি হলো। এসময় প্রধানমন্ত্রী ম’রহু’মের আত্মা’র মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৪ মে) বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে রাজধানীর সম্মিলিত সাম’রিক হাসপাতা’লে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান শেষ নিঃশ্বা’স ত্যাগ করেন। মৃ’ত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। ড. আনিসুজ্জামান দীর্ঘদিন ধরেই ফুসফুসে সংক্রমণসহ বিভিন্ন জটিল রোগে ভুগছিলেন। মহাখালীর ইউনিভা’র্সেল কার্ডিয়াক হাসপাতা’লে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) ২৭ এপ্রিল থেকে চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৯ মে পরিবারের ইচ্ছায় তাকে সম্মিলিত সাম’রিক হাসপাতা’লে (সিএমএইচ) নেয়া হয়।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ইমিরেটাস অধ্যাপক ছিলেন। অধ্যাপক আনিসুজ্জামান দেশের বরেণ্য শিক্ষাবিদ, লেখক ও গবেষক, ভাষা সংগ্রামী, মহান মুক্তিযু’দ্ধে প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণকারী, সংবিধানের অনুবাদক ও দেশের সব প্রগতিশীল আ’ন্দোলনের অগ্রবর্তী মানুষ। তার এ মৃত্যু জাতীর জন্য অপুরণীয় ক্ষতি ।


Translate »