বাবা-মা-বোন ও নানিকে নিজ হাতে একের পর এক হত্যা করেছি

অক্টোবর ০৪ ২০২০, ০২:১৬

Spread the love

বাংলা’দেশি-কানা’ডীয় যুবক মিন’হাজ জামান (২৪) আদা’লতে স্বীকা’রোক্তি দিয়ে জানি’য়েছেন, তিনি একা’ই দীর্ঘ সম’য় ধরে একের পর এ’ক জবাই করে হ’ত্যা করেছেন তা’র নানি ফিরো’জা বেগম (৭০), বা’বা মনিরু’জ্জামান (৫৯), মা মম’তাজ জামান (৫০) এবং এক’মাত্র বোন মে’লিসা জামান’কে (২১)। টাঙ্গা’ইলের সন্তান মিন’হাজ গত বৃহস্প’তিবার কানা’ডার অন্টা’রিয়ো কোর্টে এ জবান’বন্দি দি’য়েছেন। এই হত্যাকা’ন্ডের কা’রণ হিসেবে তিনি উ’ল্লেখ করে’ছেন, তিনি যে তার জী’বন-যাপন সম্প’র্কে অন’বরত সবা’ইকে মিথ্যা তথ্য দি’য়েছেন, তা চাপা দিতে’ই হত্যা’কান্ড ঘটিয়ে’ছেন। হত্যা’কান্ড শেষ করা’র পর তি’নি নিজেই পুলি’শকে ধরা দেও’য়ার জন্য প্রযো’জনীয় পদক্ষে’প নেন।

কো’র্টে মিনহা’জ জানান, অন্টারি’য়োর মার’খাম রোগের বাড়ি’তে গত ব’ছরের ২৭ জুলাই বিকা’ল থেকে গভী’র রাতের মধ্যে পর্যায়’ক্রমে এই চা’রজনকে তিনি হত্যা করেন। প্রথ’মেই বিকাল ৩টায় মাকে খুন করেন। এরপর পরি’বারের অপর সদ’স্যদের হত্যা’র পরিক’ল্পনা করে অ’পেক্ষায় থাকেন। বিকা’ল ৪টার দিকে তিনি তার নানিকে খুন করেন। এর’পর ছোট’বোন মেলিসা কর্মস্থল থেকে ফেরা পর্যন্ত অপে’ক্ষায় থাকেন। মে’লিসা কাজ ক’রতেন ফুড ব্যা’সিক্স নামে একটি সংস্থায়। মেলিসা না ফে’রা পর্যন্ত মি’নহাজ ভিডিও গেমে ব্যস্ত রাখেন নিজে’কে। রাত ১১টায় বোন বাসা’য় ফেরার সঙ্গে সঙ্গে তা’কে হ’ত্যা করেন।

আর বা’বা ট্যাক্সি চালিয়ে পরি’বারের ভরণ- পো’ষণ চালাতে’ন। তিনি গ’ভীর রাতে নি’জের শিফট শেষ করে বাসা’য় ফে’রার সঙ্গে সঙ্গে তা’কেও খুন করেন। ৯ ঘণ্টার ব্য’বধানে পরিবারের সবাই’কে হত্যার পর মিনহাজ পুলি’শের অপেক্ষায় থা’কেন। এই স’ময়ের মধ্যে তিনি হত্যা’কান্ডের সচিত্র ভিডিও চ্যা’টিং করে বাই’রের সবাই’কে জানাতে থা’কেন। তখন এক’জন মিনে’সোটা থেকে কানা’ডার পুলিশ’কে তথ্য’টি অবহিত করলে সাই’বার ক্রাইম ডিপার্টমে’ন্টের মাধ্যমে শনাক্ত করা হয় মিন’হাজদের বাসা। তদন্ত কর্মক’র্তারা জানান, ‘মিনহা’জ ইয়র্ক ইউনিভা’র্সিটিতে ইঞ্জি’নিয়ারিং প্রো’গ্রামে ভর্তি হন। এর পরের বছর (২০১৪-২০১৫) তিনি সব বিষ’য়েই ফেল করেন।

এক’সময়ের মেধা’বি ছাত্র মিন’হাজ ভিডিও গেম’সহ নানা ইভে’ন্টে আসক্ত হওয়ায় ক্লাস ফলো করতে সক্ষ’ম হননি। এ অবস্থা’য় মিনহা’জ হতা’শায় নিপতিত হন এবং মা-বাবা’র কাছে নিজের এসব তথ্য প্রকা’শের পরিবর্তে প্রতি’দিনই বাসা থেকে বের হয়ে নি’কটস্থ মলে অথবা ব্যায়া’মাগারে সময় কাটি’য়েছেন। এভাবেই অতি’বাহিত করেন ৪ বছর। মা-বাবা-বোন জে’নেছেন গত বছরের ২৮ জুলাই তার গ্র্যাজু’য়েশন হবে। এমন একটি শুভ’ক্ষণের প্রতি’ক্ষায় ছিলেন সবাই। এমন লাগা’তার মিথ্যাচার ঢাক’তেই মিনহাজ সবাইকে হত্যার পরি’কল্পনা করেন বলে আদাল’তকে অবহিত করেছেন।’ আ’দালত এ ঘটনার বিষ’য়ে শুনানির জন্য পরবর্তী তা’রিখ নির্ধারণ করেছে ২৬ অক্টো’বর।


Translate »