বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মুশফিকুর সেই ব্যাট নিলামে

১৭ লাখ টাকায় মুশফিকের ব্যাট কিনলেন পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদি

মে ১৬ ২০২০, ০৬:৫৪

Spread the love

১৭ লাখ টাকায় আফ্রিদি ফাউন্ডেশন  কিনে নিয়েছে বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করা মুশফিকের সেই ব্যাটটি ।  

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম টেস্ট ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মুশফিকুর রহিম। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের ইতিহাস গড়া সেই ব্যাটটি নিলামে ১৭ লাখ টাকায় কিনে নিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদি।

গত শনিবার রাত ১০টায় ই-কমার্স সাইট পিকাবো ও ফেসবুক পেজ ‘স্পোর্টস ফর লাইফ’র মাধ্যমে নিলাম শুরু হয় মুশফিকের ব্যাটের। মাঝে ভুয়া বিডের কারণে সাময়িক স্থগিত হয়ে নিলাম চলে ১৪মে রাত ১০টা পর্যন্ত। ফল এসেছে শুক্রবার রাতে।

ফলে দেখা যায়, মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরির স্পেশাল ব্যাটটি নিলামে নিজের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে ২০ হাজার ডলারে কিনেছেন পাকিস্তানি তারকা আফ্রিদি। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১৭ লাখ টাকার মতো।

ব্যাট বিক্রি থেকে প্রাপ্ত অর্থ ব্যয় করা হবে করোনা দুর্গত মানুষদের জন্য। মুশফিক জানান, দেশের হয়ে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাটটি সেই ২০১৩ সালের শ্রীলঙ্কা সফরের পর থেকেই তুলে রেখেছিলাম যত্ন করে।

গত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে শিরোপা এনে দেয়া অধিনায়ক আকবর আলির ব্যাট ও গ্লাভস উঠেছিল নিলামে। যা ২ হাজার ডলার তথা প্রায় পৌনে দুই লাখ টাকায় কিনে নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক বাংলাদেশি।

ব্যাট ক্রয় করে একটা ভিডিও বার্তা দেন আফ্রিদি। বলেন ‘‘আসসালামুআলাইকুম মুশফিক, আপনি দেশের মানুষের জন্য যা করছেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। সত্যিকারের নায়করাই একাজ করতে পারে। আমরা সবাই মিলে খারাপ একটা সময় পার করছি। এ সময় আমাদের একে অন্যকে সাহায্য করা জরুরী যাতে করে এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে পারি। অতীতে বাংলাদেশে আমি যে পরিমানে ভালবাসা ও সম্মান পেয়েছি তা আমি সারা জীবন মনে রাখবো। পাকিস্তানের জনগন ও শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে আমি আপনার ব্যাটটা কিনে আপনার সঙ্গী হতে চাই এই পথ চলায়। আপনার জন্য আমার প্রার্থনা সব সময় থাকবে, আশা করছি আল্লাহ আমাদের সাহায্য করবেন এই মহামারী পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে। আপনার সাথে আবারো মাঠে আমার দেখা হবে তাড়াতাড়ি’’।

বাংলাদেশে এই প্রথম অনলাইন মাধ্যমে একটা নিলাম করা হয়েছে বলে জানান বর্ষণ কবির। এই নিলামের সাথে বাংলাদেশের একটি অনলাইন মঞ্চ পিকাবু থেকে এই বিডিং পরিচালনা করা হয়েছে।

“৪০ মিনিটের মধ্যে যখন ২২ লাখ টাকা উঠে গেল, ঠিক তখন আমাদের টনক নড়ে যায়। এরপর আমরা বলে দেই যাতে কেউ ১০ হাজার টাকার ওপরে বিড না করে,” বলছিলেন মি: কবির।

তখন তারা দেখতে পান এখানে দুজন বিড করছে যার মধ্যে একজনের নাম ভারতের একজন অভিনেত্রী সানি লিওনের নামে। তাকে বিড করতে দেখা গেছে তখন।


Translate »