এক সময় যাদের ছাড়া একটি মুহুর্ত কাটানো সম্ভব হতোনা কাজের চাপে মানুষ তাদের থেকে অনেক বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে

বন্ধুর সাথে কথা হলো ১৫ বছর পরে ! মোঃ জহিরুল ইসলাম রাজু

জুলাই ০৬ ২০২০, ০৯:৪৭

Spread the love

বন্ধু ( শিখা) এর সাথে কথা হলো ১৫ বছর পরে ! মোঃ জহিরুল ইসলাম রাজু

করোনা পরিস্থিতিতে আমরা সবাই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলছি । দীর্ঘদিন ঘরে থাকায় মানুসিক চাপ সামলাতে আমরা খুঁজে বেড়াচ্ছি কাছের মানুষগুলোকে, যাদের সাথে কথা বল্লে কিছুটা ভালো লাগা তৈরী হয় । এক সময় যাদের ছাড়া একটি মুহুর্ত কাটানো সম্ভব হতোনা কাজের চাপে মানুষ তাদের থেকে অনেক বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে । কিন্তু প্রকৃতি মানুষকে বার বার ফিরিয়ে নিয়ে যায় তার প্রকৃত বন্ধুদের কাছে ।

তেমনি  ১৫ বছর পরে কথা হলো শিখার সাথে । গত পরশু শিখার ফোন নম্বরটি পেলাম আমেরিকা বসবাসরত আরেক বন্ধু নাসিরের কাছ থেকে । অবাক হলাম যার নম্বর এতোদিন ধরে খুঁজছি সবার কাছে, তার নম্বর ঠিকই আমেরিকাতে ! এ জন্যই কী আমেরিকা নম্বর ওয়ান !!

শিখার নম্বরটা পেয়ে ১ দিন প্রস্তুতি নিলাম ওর সাথে কিভাবে কথা শুরু করবো  কারণ এখন অনেক কিছু বিবেচনা করতে হবে, ওর ঘর আছে, স্বামী সন্তান আছে, সব দিক বিবেচনা করেই ফোনে কথা বলতে হবে । সকাল ১১টার দিকে ফোন দিলাম । ফোন দিতে জিগ্গেস করলাম ‘‘ এটা কি পাবনা থেকে শিখা?’’ উত্তর আসলো হ্যাঁ । আপনি কি বরিশাল বি,এম কলেছের ছাত্রী ছিলেন ? উত্তর হ্যাঁ । আমি বুঝে ফেলেছি শয়তানটা আমার কন্ঠ চেনার চেষ্টা করছে। এর পরের প্রশ্ন ছিলো বি,এম কলেজে অধ্যানরত অবস্থায় আপনার বন্ধু কে কে ছিলো ? । হেসে উত্তর দিলো বন্ধুতো অনেকজন থাকে তার মধ্যে একজনই আছে তার নাম রাজু ।

আমি এদিক থেকে উত্তর দিলাম তোকে জুতা দিয়ে মারা উচিত কারণ আমার মোবাইল নম্বর তো পরিবর্তন হয়নি । ও হাসলো সব সময়ের মতো, এখনো ওর বকা খেলে সেই হাসি আছে, আছে কথা বলার ধরন একরকম, শুধু বদলে গেছে ১৫টি বছর । এখন ও স্বাধীন নয় ইচ্ছা করলে ফেসবুকে কাউকে কল দিতে পারেনা । ইচ্ছা হলেই ক্যাম্পাসে ছুটে আসতে পারেনা, ক্লাস না থাকলেও সারাদিন বৃষ্টিতে ভিজতে পারেনা, তেমনি আমিও বদলে গেছি ওর মতোই।  তবুও আজ ওর সাথে কথা বলার পরে একটি অন্যরকম ভালোলাগা তৈরী হলো । অন্তত দু’জনার খোঁজ দু’জন নিতে পারলাম ।

করোনার কারণেই হয়তো ১৫ বছর পরে হলেও বন্ধুর সাথে কথা হলো । ছবি প্রতিকী ।


Translate »