ওসির আসনে বসে সাজানো গাড়িতে বাড়ি ফিরলেন কনস্টেবল!

অক্টোবর ০২ ২০২০, ২২:২৯

Spread the love

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজে’লার চর ভা’রাঙ্গা উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মো. আবু জায়েদ। ১৯৮৪ সালে কনস্টেবল হিসাবে তিনি পু’লিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। শি’বালয় থা’নায় কর্ম’রত ছিলেন বছর খানেক ধরে। ৩৮ বছর চাকরির পর শুক্রবার (২ অক্টোবর) অবসরে যান তিনি। তার অবসরে যাওয়ার দিনটি স্ম’রণীয় করে রাখতে ব্যতিক্রমী বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।

মো. আবু জায়েদ নামে ওই কনস্টেবলের অবসরে যাওয়ার দিনটি স্ম’রণীয় করে রাখতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানানোর পাশাপাশি ওসির গাড়িতে করে তাকে পৌঁছে দেয়া হয় নিজের বাড়িতে। এ সময় গাড়িটি রঙ-বেরঙয়ের বেলুন ও ফুল দিয়ে সাজানো হয় এবং আবু জায়েদকে ওসির আসনে বসানো হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) রাতে থা’নার সকল সদস্যদের নিয়ে জায়েদের বিদায় উপলক্ষ্যে আনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ওসি মো. ফিরোজ করিব। তার হাতে তুলে দেয়া হয় বিভিন্ন উপহার সামগ্রী।

শুক্রবার দুপুরে বাড়ি ফেরার সময় কনস্টেবলের সম্মানে ওসির ব্যবহৃত সরকারি গাড়ি রঙ-বেরঙয়ের বেলুন ও ফুল দিয়ে সাজানো হয়। এরপর আনন্দঘন পরিবেশে বিদায় সম্বর্ধনা শেষে সেই গাড়িতে ওসির আসনে বসিয়ে জায়েদকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়।

পু’লিশ সদস্য মো. আবু জায়েদ বলেন, চাকরি জীবনে কখনও কল্পনা করিনি এমন সম্মান নিয়ে অবসরে যাব। এমন ব্যতিক্রমী বিদায় অনুষ্ঠান দেখে আমি সত্যিই খুশি হয়েছি। আমাকে ও আমা’র পরিবারকে সম্মানিত করার জন্য ওসি স্যারসহ সকল সহকর্মীকে অসংখ্য ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

শি’বালয় থা’না পু’লিশের ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মো. ফিরোজ কবির বলেন, পু’লিশ সদস্য আবু জায়েদের বিদায় অনুষ্ঠানটি স্ম’রণীয় করে রাখতেই এমন আয়োজন করা হয়েছে। এটা তেমন কিছুই না, শুধু ছোট্ট একটা উদ্যোগ। এই উদ্যোগে তাকে সম্মানিত করতে পেরেছি এবং তার মুখে হাসি ফোটাতে পেরেছি।


Translate »