আজকের রাত রোযাদারদেরকে পুরস্কার প্রদানের রাত

মে ২৪ ২০২০, ১১:১১

Spread the love

দেখতে দেখতে শেষ হয়ে গেল রহমত ও বরকতের মাহে রমযান আর রমযানের পড়েই চলে আসল ঈদ। ঈদ মানে
আনন্দ ঈদ মানে খুশি, আর এই খুশি একমাত্র মুমিনদের জন্য যারা পুরো মাস ভরে দিনের বেলায় রোযা রেখেছেন
আর রাত্রে তারাবির নামায আদায় করেছেন। যখন ঈদুল ফিতরের রাত হয় তখন আসমানে উহাকে পুরস্কারের
রাত্র বলিয়া নামকরণ করা হয়। এই রাত্রে আল্লাহ তা’লার পক্ষ হইতে বান্দাদিগকে পুরস্কার দেওয়া হয়।

ঈদের দিন সকালে আল্লাহ তা’লা ফেরেশতাদিগকে প্রত্যেক বসতিতে পাঠাইয়া দেন। তাহারা জমিনে অবতরণ
করিয়া সমস্ত অলিগলি ও রাস্তার মোড়ে মোড়ে দঁড়াইয়া যান এবং এমন আওয়াজে যাহা জিন ও মানব ব্যতীত
সকল মাখলুকই শুনিতে পায়—ডাকিতে থাকেন যে, হে মুহাম্মদ (সঃ) এর উম্মত ! পরম দয়াময় পরওয়ারদিগারের
দরবারে চল যিনি অপরিসীম দাতা ও অপরাধ ক্ষমাকারী। আর যখন লোকেরা ঈদগাহের উদ্দেশ্যে বাহির হয়
তখন ফেরেশতারা তাদের সাথে মোসাফাহ করিতে থাকে। অতঃপর ঈদগাহের ময়দানে উপস্থিত হলে আল্লাহ
তা’লা ফেরেশতাদেরকে সাক্ষী রেখে বলেন যে, আমি তাহাদিগকে রমযানের রোযা ও তারাবির বদলায় আমার
সন্তুষ্টি ও ক্ষমা দান করিলাম।

অতঃপর আল্লাহ তায়ালা বান্দাদের প্রতি লক্ষ্য করিয়া বলেন তোমরা
আজকের এই ঈদের জামায়াতে আখেরাতের ব্যাপারে যাহা কিছু চাহিবে আমি দান করিব আর দুনিয়ার বিষয়ে যাহা
চাহিবে উহাতে তোমাদের জন্য যাহা মঙ্গলজনক হইবে তাহাই দান করিব। সুতরাং তোমরা ক্ষমাপ্রাপ্ত হইয়া
ঘরে ফিরিয়া যাও।
এইজন্য আমাদের এই মহামূল্যবান রাত্রকে কেনাকাটা আনন্দ ফুর্তিতে না কাটিয়ে আল্লাহ্‌র ইবাদত ও
দোয়ার মধ্যে কাটানো উচিৎ। এতদিন যেমন আমরা প্রতি রাত্রে বিশ রাকআত করে তারাবির নামায পড়েছি
আজ এই পুরস্কারের রাত্রেও যেন আমরা অল্প হলেও কিছু ইবাদত বন্দেগী করে আল্লাহ তা’লাকে সম্পূর্ন
রাযী করিয়ে নিতে পারি। আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে এই রাতে বেশি বেশি নামায, যিকির, তিলাওয়াত ও দোয়া
কান্নাকাটিতে ব্যাস্ত থাকার তৌফীক দান করুণ।

লেখক :
মোঃ রুহুল আমিন হাওলাদার
বিভাগীয় প্রধান
ইংরেজি বিভাগ, এনপিআই ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।


Translate »